সর্বশেষ সংবাদ

প্রতারণার শিকার তানহা, পরিচালকের অস্বীকার

 
Tanha-victim-of-fraud-the-manager-refused

গাজীপুরের পূবাইলে ২০১৪ সালের ২৩ জুন ‘ধূমকেতু’র মহরত করেন পরিচালক শফিক হাসান। তখন তানহা তাসনিয়াকে ছবির দুই নায়িকার একজন হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেন। মুক্তির শেষ মুহূর্তে জানা গেল তিনি ‘অতিথি চরিত্র’ করেছেন!


শোবিজকে তানহা বলেন, ‘আমাকে চুক্তিবদ্ধ করানো হয় নায়িকা হিসেবে। আরেকজন নায়িকা থাকবেন পরী মনি। পুরো গল্প আমার উপর শুধুমাত্র ছবির শেষে আমি মারা যাব— এটা ছিল কথা। সে অনুযায়ী ২০১৪ ও ২০১৫ সাল মিলিয়ে প্রায় ২০দিন শুটিং করি। আমার ২৫-২৬টি দৃশ্য শুটিং করা হয়। এখন শুনছি মাত্র ২-৩টি রাখা হয়েছে। আমি নাকি অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছি।’

তিনি আরো অভিযোগ করেন, ‘তারা নাকি ছবির গল্প পরিবর্তন করেছেন। পুরো ছবির ৫৬টি দৃশ্য রি-শুট করেছেন। পরী মনি-শাকিবসহ আমার একটা গানের শুটিং হয়েছিল। সেটিও নাকি ফেলে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ছবিতে আমার একটি রোমান্টিক গান করার কথা শাকিব ভাইয়ের সাথে, তাও করেনি। আমি ডাবিং করতে চাইলেও আমাকে পরিচালক বলেছেন, করবা সমস্যা নেই। ডেট ফিক্সড করে তোমাকে জানাচ্ছি। এরপর আর আমাকে ফোন দেননি। এখন তিনি সবকিছুর জন্য প্রযোজককে দায়ী করছেন।’

‘ভোলা তো তারে যায় না’ নায়িকা দুঃখ করেই বলেন, ‘দিনের পর দিন আমি শুটিং করলাম। সাংবাদিক ভাইয়েরা দুই নায়িকার এক নায়িকা হিসেবে আমার সংবাদ পরিবেশন করল। তারা তো আমার কথায় প্রভাবিত হয়ে সংবাদ পরিবেশন করেননি। তারা পরিচালকের সাথে কথা বলেই করেছেন। তাহলে এখন কেন তিনি মিথ্যে বলছেন?’

‘তানহা এ ধরনের অভিযোগ করতেই পারে না’ প্রথমেই বলেন শফিক হাসান। কিন্তু তানহা নিজে ফোন করে অভিযোগ জানিয়েছেন বলার পর শফিক হাসান বললেন, ‘সবকিছু ওর সাথে কথা বলেই আমরা করেছি। পুরো ছবি নির্মাণের পরে আমাদের মনে হয়েছিল গল্পের প্যার্টান ঠিক নেই। তাই আমরা শাকিব, পরী, তানহার ৫৬টি দৃশ্য ফেলে দিয়ে রিশুট করি। গল্প পরিবর্তনের পর মাস দেড়েক আগেও তানহা একটি হাসপাতালের দৃশ্যের শুটিং করে দিয়েছে।’

শফিক হাসান আরো বলেন, ‘তানহাকে জিজ্ঞাসা করেই ছবিতে ওর নাম অতিথি শিল্পী হিসেবে রেখেছি। কারো দ্বারা প্রভাবিত না, এটা আমাদের সম্মলিত সিদ্ধান্ত ছিল গল্প পরিবর্তনের।’

ট্রেলার বা পোস্টারে না থাকা প্রসঙ্গে বলেন, ‘আসলে গল্প পরিবর্তনের পর ওর অংশটুকু এতটাই কমে গেছে যে আমরা ট্রেলারে না রাখাই শ্রেয় মনে করেছি। আর যেহেতু একক নায়িকা নির্ভর করে ফেলেছি, তাকে প্রাধান্য দেওয়াটাই উচিত নয় কি? এরপরও হল ট্রেলার এবং গ্রাম-গঞ্জের পোস্টারে সে আছে।’ ডাবিং না করানো নিয়ে বলেন, ‘যেহেতু দৃশ্য হাতে গোনা কয়েকটি, তাই ওকে দিয়ে ডাবিং করানো দরকার মনে করিনি।’



No comments:

Post a Comment

Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.