সর্বশেষ সংবাদ

ভিকি জাহেদের শর্ট ফিল্ম “দেয়াল”(Wall)

মাহফুজের জন্য অপেক্ষা করছে নিলু। নিলুর জন্য অপেক্ষা করছে নিলুর মা। আর নিলুর ভাইর রাতেই কোথায় যেন যেতে হবে অথচ আজ বাদে কাল ছোট বোনের বিয়ে। কোথায় যাবে সেটা বলা হয়নি। তবে যেতেই হবে। মাকে বাজার করে দিয়ে যাবার কথা বলে ছেলে। মা বলে “তুই সাবধানে থাকিস বাবা”।

ভিকি জাহেদের শর্ট ফিল্ম “দেয়াল”(Wall)

প্রেমিকের জন্য প্রেমিকার পার্কে বিচলিত অপেক্ষা, দেরির অজুহাত হিসেবে প্রেমিকার পছন্দের জিনিস আনা সবই পুরনো। তবু চমৎকার সিনেমাটোগ্রাফি আর রূপসজ্জা নজর কাড়ে। আর তওসিফ-সাফার পর্দার রসায়ন যেন উপরিপাওনা। বিশেষ করে শাফার বাঙালী তরুণী মেক-অভার আর অভিব্যক্তিতে ভূয়সী উন্নতি প্রশংসনীয় যেটা গত ঈদে একি জুটির হুমায়ূন আহমেদের নাটকটিতেই টের পেয়েছিলাম। আর তওসিফের স্বতঃস্ফূর্ত অভিনয় ওর ট্রাম্প কার্ড। পার্শ্বচরিত্রে তওসিফের রুমমেট আর নিলুর বড় ভাইর চরিত্র এবং অভিনয় উল্লেখযোগ্য।

আবহ সংগীত, শিল্প নির্দেশনা, পরিচালনা আর সিনেমাটোগ্রাফি মিলিয়ে নতুন মেকার হিসেবে বেশ পরিপূর্ণ একটা কাজ। ২টা পছন্দের দৃশ্যঃ যেখানে “স্ক্রিপ্ট-অভিনয়” পুরা ফিল্মে ছিল সেরা –

১। তওসিফ-তার কবি রুমমেটের মাঝের দৃশ্য।
২। “টিপটা সরে গেছে” – সাফা-ম্যাডাম কণার মাঝের দৃশ্য।

ক্লাইম্যাক্সের foreshadowing শুরু থেকেই দেয়া যেত, যেটা এন্ডিংটাকে আরও মিনিংফুল করত মনে করি। কেননা পুরাটা সময়ে পটভূমিটাকে গোপন রাখা হয়েছে। সেটা না করে পটভূমিটা দেয়ালের পোস্টার, খাকি জামা পরিহিত ব্যক্তির আনাগোনা, ইত্যাদি বিভিন্নভাবে দেখানো যেত তাতে পিরিয়ডের ডিটেইলিং বাড়ত। কেননা আমার কাছে যেকোনো ফিল্ম/ নাটকের পিরিয়ডের প্রকাশ শুরুতেই হয়ে যাওয়া জরুরী। শুধু পাত্রপাত্রীর রূপসজ্জা দিয়ে হয়না।

সব মিলিয়ে চমৎকার পরিচালনা আর গল্পের একটা ফিল্ম, যেটা আরও ভালো হতে পারতো। বিশেষ করে স্ক্রিপ্ট আর সংলাপে সাবলীলতা দর্শনীয়। অভিনয়ে নিলুর ভাই আর মাহফুজের কবি রুমমেটটার কাজ বেশি ভালো লেগেছে। ওরা কি মঞ্চের লোক নাকি?

এরকম যত্ন আর সততার কাজ দেখতে এবং তা নিয়ে লিখতেও ভালো লাগে। সামনে আরও ভালো করবেন এই প্রত্যাশায়।



Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.