সর্বশেষ সংবাদ

টিভি সিরিজ "Westworld"

আমরা আমাদের অস্তিত্ব নিয়ে কী কখনো একবার ভেবে দেখেছি? ভেবে দেখেছি, আমাদের দৈনন্দিন জীবনের যত ঘটনা বা যা আমাদের আশেপাশে আমাদের সাথে ঘটছে তার সবই কী আমাদের নিয়ন্ত্রণে কি না? কিরকম হবে যদি আমাদের প্রতিদিনের গল্পটা যদি হয় অন্য কারো লেখা? আমাদের সব কিছুই কারো দ্বারা নিয়ন্ত্রিত?

টিভি সিরিজ Westworld

এরকমই ভিন্ন ধারার একটি গল্প নিয়ে স্যাটেলাইট ব্রডকাস্টিং চ্যানেল HBO তে শুরু হয়েছিল টিভি সিরিজ “Westworld”. নোলান ব্রাদার্সের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য জোনাথন নোলানের তৈরি করা এই সিরিজটি ইতোমধ্যে এর ভিন্ন ধারার গল্পের জন্য কুড়িয়ে নিয়েছে প্রশংসা।

কিছু বিজ্ঞানীদের করা এক কাল্পনিক জগৎ ওয়েস্টওয়ার্ল্ড । যেখানের বাসিন্দারা দেখতে আমার আপনার মত মানুষ হলেও আসলে সবাই কন্ট্রোল রুম থেকে নিয়ন্ত্রিত কিছু রোবট। যাঁদের গল্প অথবা তাদের দৈনন্দিন জীবনের সব কাজই করে যাচ্ছে কিছু প্রোগ্রাম লেখার মাধ্যমে। ওয়েস্টয়ার্ল্ড নামক এই বিশাল জগতে যেমন আছে ভয়াবহ কিছু দস্যুর দল, তেমনি আছে এদের নিয়ন্ত্রণ করার জন্য শেরিফ। এক কথায় বলা যায় যেন অপরাধ জগৎ নিয়েই করা হয়েছিল আলাদা এই “রাজ্যটি”।

এত বিশাল রাজ্য তৈরি করার পেছনে অবদান রেখেছিল Dr. Robert Ford (যেই ভূমিকায় অভিনয় করেছেন Anthony Hopkins) এবং Dr. Arnold Weber. এই দুই বিজ্ঞানীর অক্লান্ত প্রচেষ্টায় অনেক বছর পর তৈরি করা সম্ভব হয় এই জগৎ, যেখানে রোবটদের বলা হত “Host” এবং এই জগৎ উপভোগের জন্য যারা সেখানে যেত তাদের বলা হত “Guest”.

কিন্তু এই জগৎ আর উপভোগের বস্তু হয়ে ওঠেনি যখন “Host” এবং “Guest”দের আর কেউই নিয়ন্ত্রণে থাকেনি । অনেক “Guest”ই বাস্তবতার সাথে মেলাতে গিয়ে নিজেকে হারিয়ে ফেলেছেন তো অনেক “Host”ই চেয়েছিল নিজেদের আলাদা অস্তিত্ব। ওয়েস্টওয়ার্ল্ডের এই জগৎ থেকেই বেরিয়ে আসে Dr.Ford এবং Arnold এর শিহরণ জাগানো কিছু তথ্য। বেরিয়ে আসে একের পর এক প্রশ্ন ও রহস্যের উত্তর। এমন কী দর্শকের মনেও যোগায় ভাবনার খোরাক।

এই সিরিজের অন্যতম বিশেষত্ব হল এর অভিনয়। Anthony Hopkins এর মত কিংবন্তী অভিনেতা তো ছিলেনই সাথে রোবট Dolores হিসেবে অভিনয় করা Evan Rachel Wood এবং Maeve এর চরিত্রে অভিনয় করা Thandie Newton ও সমালোচকদের কাছে প্রশংসিত হয়েছে। এছাড়া বিজ্ঞানী Bernard Lowie এর ভূমিকায় অভিনয় করা Jeffrey Wright এবং Man in Black চরিত্রে অভিনয় করা Ed Harris ও রেখেছেনগুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

১৯৭৩ সালে নির্মিত একই নামের মুভি থেকে অনুপ্রাণিত HBO এর এই সিরিজটি প্রথম সিজন সর্বাধিক ডাউনলোডের রেকর্ডে Game of Thrones কেও ছাড়িয়ে গিয়েছে । মাত্রই প্রথম সিজন শেষ হওয়া এই সিরিজটির দ্বিতীয় সিজন শুরুর জন্য অপেক্ষা করতে হবে ২০১৮ সাল পর্যন্ত। তো আর দেরি না করে দেখে ফেলুন শীঘ্রই মাস্টারপিস হতে যাওয়া সাই-ফাই জনরার এই সিরিজটি ।



Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.