সর্বশেষ সংবাদ

তৃষিত চাতক অভিনেত্রী Najia Haque Arsh

বর্তমান প্রজন্মের যারা ছোট পর্দায় নিয়মিত কাজ করছেন, তাদের মধ্যে অন্যতম প্রিয় অভিনেত্রী Najia Haque Arsh। অভিনয়ের শুরু থেকেই মানসম্পন্ন নাটক ও সাবলীল অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শক-হৃদয় জয় করেছেন তিনি। শুধু অভিনয় নয়, চেহারায় বুদ্ধিদীপ্ত শৈল্পিক অভিব্যক্তির কারণে ব্যতিক্রমী ও সাহসী চরিত্রে নির্মাতাদের প্রথম পছন্দ অর্ষা। অভিনেত্রী হিসেবে খ্যাতি অর্জন করলেও বাস্তবজীবনে আগের মতোই হাসিখুশি ও আড্ডাবাজ অর্ষা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি চত্বর বা চারুকলায় প্রায়ই লক্ষ্য করা যায় সদাহাস্য এ অভিনেত্রীকে। বন্ধুদের সঙ্গে প্রাণ খোলা আড্ডায় অর্ষা হয়ে ওঠেন খুব পরিচিত কাছের একজন মানুষ।

তৃষিত চাতক অভিনেত্রী Najia Haque Arsh

খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করলেও বর্তমানে অভিনয়কেই পেশা হিসেবে নিয়েছেন অর্ষা। এ মুহূর্তে ব্যস্ত সময় পার করছেন বিভিন্ন টেলিভিশনে একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিক নিয়ে। এনটিভিতে প্রচার হচ্ছে তার অভিনীত সোহেল আরমানের ধারাবাহিক নাটক 'জলরং'। এতে অর্ষা অভিনয় করছেন ডাক্তার মোমেন আলীর আদরের এক শান্তশিষ্ট মেয়ের চরিত্রে। জীবনের নানা গতির সঙ্গে মনের রঙ মিশিয়ে এর চিত্রনাট্য করেছেন আমজাদ হোসেন। অন্যদিকে এটিএন বাংলায় প্রচারিত 'রাজু ৪২০' ধারাবাহিকে অর্ষাকে দেখা যাবে সম্পূর্ণ ভিন্নরূপে। এ নাটকে তিনি অভিনয় করছেন এক টমবয়ের চরিত্রে। বিত্তবান মানুষকে ঠকিয়ে কীভাবে নিজেদের উপার্জনের রাস্তা আবিষ্কার করা যায়, তা নিয়েই নাটকটির গল্প। প্রচারের পর থেকে নাটকটি নিয়ে বেশ প্রশংসা পাচ্ছেন অর্ষা। মাসুদ হাসান উজ্জ্বলের গল্প অবলম্বনে ধারাবাহিকটি পরিচালনা করেছেন জাহিদ হাসান। এ ছাড়া একই চ্যানেলের জনপ্রিয় ধারাবাহিক 'বাবুই পাখির বাসা'য় তিনি অভিনয় করছেন প্রেরণা নামের এক দ্বন্দ্বমুখর চরিত্রে। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন শ্যামল মাওলা। কিন্তু এ দু'জনের সম্পর্ক প্রেমের না বন্ধুত্বের তা ঠিক স্পষ্ট নয়। 

সকাল আহমেদের 'ফুলমহল' নাটকে অর্ষা অভিনয় করছেন সিরিয়াসধর্মী এক নারী সুহার চরিত্রে। ফ্যাশন ডিজাইনার ফিরোজা চৌধুরীর একমাত্র কন্যা সে। ঘটনাচক্রে সুহা পরিচিত হয় লাইফস্টাইল ম্যাগাজিনের সম্পাদক সৌরজয়ের সঙ্গে। তার এক প্রতিবেদনে ফুটে ওঠে ফুলমহল নামে এক বাড়ির অন্দরমহলের অজানা গল্প। এটি প্রচার হচ্ছে বাংলাভিশনে। অর্ষা জানান, ধারাবাহিকগুলো একসঙ্গে প্রচার হলেও একেকটির গল্প একেক রকম। যে কারণে মনোযোগ ধরে রাখতে সমস্যা হয় না। এরই মধ্যে সাখাওয়াত মানিকের নাম ঠিক না হওয়া একটি ধারাবাহিক নাটকেও কাজ শুরু করেছেন তিনি। বর্তমানে অর্ষার ব্যস্ততা রবীন্দ্রনাথের গল্প অবলম্বনে নির্মিত নতুন দুই নাটক নিয়ে। কবিগুরুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে নাটক দুটি নির্মাণ হচ্ছে বলে জানান তিনি। দুটি ভিন্ন চ্যানেলের জন্য নাটক দুটি নির্মাণ করছেন দুই প্রখ্যাত নির্মাতা। এ প্রসঙ্গে অর্ষা বলেন, 'কবিগুরুর কোনো চরিত্রে অভিনয় করা, যে কোনো অভিনেত্রীর কাছেই স্বপ্নের মতো। কারণ এ ধরনের নাটকে অভিনয় করলে, ব্যক্তিগতভাবে নিজের পরিচয় পাওয়া যায়। এ কাজগুলো একান্ত নিজের মনে হয়। তবে চ্যালেঞ্জও নিতে হয়। আশা করছি, গল্পটা বলতে পারবো ঠিকঠাক।' রবীন্দ্রনাথের কবিতা বা গল্পের ছায়া অবলম্বনে এ দুটি নাটকের চিত্রনাট্যের কাজ চলছে। আগামী ২২ এপ্রিলের পর শুরু হবে এর দৃশ্যধারণের কাজ। 

ধারাবাহিক নিয়ে ব্যস্ততা বেশি থাকলেও একক নাটকে নিয়মিত অর্ষা। কারণ অন্তরে বাহিরে নিজেকে তুলে ধরার জন্য একক নাটকের বিকল্প নেই। এরইমধ্যে 'শূন্য জীবন', 'এই তো প্রেম' ও 'পিঙ্ক পার্ল' নামে তিনটি একক নাটকের কাজ শেষ করেছেন তিনি। তিনটি নাটকেই অর্ষার অতুলনীয় অভিনয়ের স্পর্শ পাবেন দর্শক। অর্ষা জানান, এরই মধ্যে ছোটকাকু সিরিজের পরবর্তী কাজ নিয়ে পরিকল্পনা শেষ হয়েছে। এ বছর খুলনায় নাটকটির দৃশ্যধারণ হবে। তবে এর শিরোনাম ও গল্প এখনও চূড়ান্ত নয়। রমজানের কোনো এক সময়ে এ নাটকের দৃশ্যধারণে অংশ নেবেন তিনি। এ বছর এ সিরিজে নতুন দুই মুখ যোগ হবে বলেও জানান তিনি। 

চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে অর্ষা জানান, ছোটকাকু সিরিজের গল্প নিয়েই একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে কাজ করছেন তিনি। 



Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.