সর্বশেষ সংবাদ

সুদূরের পিয়াসী Nowshin

অভিনয়, উপস্থাপনা ও রেডিও জকি হিসেবে পরিচিত Nowshin। এবার ছোট পর্দার জনপ্রিয় এ অভিনেত্রীর সঙ্গে যুক্ত হলো নতুন পরিচয়। সম্প্রতি প্রযোজক অধিকর্তা হিসেবেও কাজ শুরু করেছেন তিনি। চলতি বছরের শুরুতেই 'মুখোশ মানুষ : দ্য ফেইক' চলচ্চিত্রের মাধ্যমে নওশীনের বড় পর্দায় যাত্রা শুরু। ব্যবসাসফল না হলেও ছবিটি নিয়ে আলোচনা কম ছিল না। ছবিতে নওশীন অভিনীত নীল চরিত্রটিও বেশ সাহসী। পরকীয়া, সাইবার ক্রাইম আর মানুষের আবেগ নিয়ে নির্মাতা ইয়াসির আরাফাত জুয়েলের এ ছবিটি শুরু থেকেই আলোচনায় ছিল। নওশীন জানান, নিজের অভিনীত চরিত্রের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। তাই ছবিটির ব্যবসা কেমন হলো, তা নিয়ে ভাবছেন না এখন। এ মুহূর্তে তিনি ব্যস্ত পরবর্তী ছবির চিত্রনাট্য নির্বাচনে। এরই মধ্যে তিনটি চিত্রনাট্য হাতে পেয়েছেন তিনি।

সুদূরের পিয়াসী Nowshin

গত বছর চাকরি নিয়ে ব্যস্ত থাকায় খুব বেশি নাটকে অভিনয় করেননি নওশীন। চিত্রনাট্য ভালো লাগায় সময় মেনে কাজ করেছেন একাধিক নাটকে। পাশাপাশি করেছেন অল্পবিস্তর উপস্থাপনার কাজ। তিনি জানান, 'অভিনয় থেকে দূরে সরতে চাইনি বলেই রেডিওর চাকরি ছেড়ে দেওয়া। তবে কাজ ছাড়া আমি এক মুহূর্ত থাকতে পারি না। সম্ভবত এ কারণেই অনেক কিছু একসঙ্গে করা। তবে এখন অভিনয়ে বেশি সময় দিতে চাই। পাশাপাশি প্রযোজনার কাজও ভালো করে রপ্ত করতে চাই। অনেক নির্মাতার সঙ্গেও কথা হচ্ছে। আবার সবার সঙ্গে দেখা হবে ভেবেও ভালো লাগছে।' 

বেতারের গল্প নিয়ে দীপ্ত টিভিতে প্রচারিত 'বেতার ভালোবাসা' নামের একটি ছয় পর্বের ধারাবাহিকের মাধ্যমে নাটক প্রযোজনার কাজ শুরু করেছেন অভিনেত্রী নওশীন। কাজল আরেফিন অমির এ নাটকে প্রযোজনার পাশাপাশি অভিনয়ও করছেন তিনি। তবে নিজের প্রযোজনার নাটকে অভিনয় করতে ইচ্ছুক নন তিনি। আলভী আহমেদের 'সার্কাস পরিবার' নাটকে তাই অভিনয় করছেন না তিনি। এটি তার প্রযোজনায় দ্বিতীয় নাটক। এ ছাড়াও বেশকিছু নাটক প্রযোজনা করার কথা ভাবছেন তিনি। অন্যদিকে বিভিন্ন টেলিভিশনে প্রচার হচ্ছে নওশীন অভিনীত একাধিক ধারাবাহিক নাটক। এর মধ্যে 'উত্তাল তরঙ্গ', 'ভ্যাগাবন্ড', 'চিরকুমারী সংঘ', 'করপোরেট' নাটকগুলোর দৃশ্যধারণে নিয়মিত সময় দিচ্ছেন তিনি। এ ছাড়াও শুরু করছেন একাধিক ধারাবাহিক নাটকের কাজ। তবে ঈদের মৌসুম শুরু হওয়ায় একক নাটক নিয়েও ব্যস্ত নওশীন। এরই মধ্যে মোশাররফ করিমের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়েছেন 'ইহা হইতে উহা উত্তম' নামের একটি নাটকে। এতে নওশীন অভিনয় করেছেন রেণু নামে এক গ্রাম্য মেয়ের চরিত্রে। এ ছাড়াও 'শাশুড়ি জিন্দাবাদ' শিরোনামে নতুন একটি ধারাবাহিকে কাজ করছেন তিনি। নওশীন বলেন, 'আগের মতো শুধু নায়িকা চরিত্রে কাজের সময় এখন নেই। তাই চিত্রনাট্যে নিজের অভিনয়ের জায়গা থাকলেই ধারাবাহিকে কাজ করছি। তবে এখনকার নির্মাতাদের অনেকে আমাদের নিয়ে ভেবে চিত্রনাট্য করছেন। এই পরিবর্তন পরবর্তী প্রজন্মের জন্যও আশাবাদের।' সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় সূর্যদীপ্ত সূর্যের তিনটি নাটকের কাজ শেষ করেছেন নওশীন। এর মধ্যে 'সোনালি বিকেল' ছাড়া বাকি দুটি নাটকের নাম চূড়ান্ত হয়নি। সামনের মাসে দাদি আর মাকে নিয়ে সাতদিনের জন্য আমেরিকায় যাচ্ছেন তিনি। এজন্য শেষ করে নিচ্ছেন হাতে থাকা একক নাটকের কাজ। এরই মধ্যে তিনি শেষ করেছেন শেখ সেলিমের 'ফরচুন' নামের একটি একক নাটকের কাজ। রোজার সময়টায় পুরোদমে নাটক আর উপস্থাপনা নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন বলে জানান তিনি। 

টেলিভিশন নাটকের নানা দুরবস্থার মধ্যেও নিয়মিত কাজ করছেন নওশীন। এ বছর অভিনয় শিল্পী সংঘের যাত্রা শুরু হওয়ায় কিছুটা আশাবাদী তিনি। শিল্পীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নাটকের আগের দিন ফেরত আসবে বলে আশা করেন তিনি। এ প্রসঙ্গে নওশীন বলেন, 'অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচনে আমি জয়লাভ করিনি, কিন্তু সবার সঙ্গে কাজ করতে আমার সমস্যা নেই। বর্তমানে বিভিন্ন চ্যানেলে নাটক নিয়ে যে দুরবস্থা, সবার প্রতিবাদহীন মানসিকতাই এর জন্য দায়ী। অভিনয় শিল্পী সংঘ, পরিচালক ও প্রযোজক সমিতি সবাই এক যোগে কাজ করলে ইতিবাচক পরিবর্তন সম্ভব। এজন্য সময় দরকার।' বিখ্যাত নির্মাতা ছাড়া নওশীন নতুনদের সঙ্গে কাজ করেন না- এই অভিযোগের বিপরীতে নওশীন জানান, 'মাঝখানে কিছুদিন অভিনয় থেকে দূরে থাকায় পরিচিত নির্মাতা ছাড়া খুব একটা কাজ করিনি। তাই অনেকে ভেবে নেন, আমি নতুনদের সঙ্গে কাজ করি না। কিন্তু আমি চাই নতুন নির্মাতারা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করুক, তাদের পরিকল্পনার কথা আমাকে জানাক। কারণ আমাদের সময়কার নাটকের সঙ্গে বর্তমান প্রজন্মের নির্মাতাদের কাজে পার্থক্য আছে। তাদের গল্পের উপস্থাপন আলাদা। তবে নতুন নির্মাতাদের কাজ খুব বেশি দেখা হয় না বলে এ নিয়ে বেশি কিছু বলতে চাই না।'

সমসাময়িক নাটকের ক্ষেত্রে বলা হয়, নির্মাতাদের নাম উঠিয়ে নাটক দেখা হলে কেউ আলাদা করে বলতে পারবেন না কোনটা কার নাটক। এ প্রসঙ্গে নওশীন একমত নন। তার মতে, এখনও অনেক নির্মাতা নিজস্ব বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে কাজ করেন। তাদের গল্প বলার স্টাইল প্রত্যেকের চেয়ে আলাদা। তাই বিভ্রান্ত হওয়ার সুযোগ নাটকে কম। নওশীন জানান, এ বছর রবীন্দ্রজয়ন্তী উপলক্ষে কবিগুরুর একটি গল্পে অভিনয় করবেন তিনি। মানিকগঞ্জের নানা জায়গায় নাটকটির দৃশ্যধারণ হবে আজ ও কাল। তবে নাটকটির নাম চূড়ান্ত না হওয়ায় অপেক্ষা করতে হবে ২৫ বৈশাখ পর্যন্ত। 

অভিনয়ের পাশাপাশি নওশীন এখন ব্যস্ত উপস্থাপনা নিয়ে। এরই মধ্যে ঈদ আয়োজনের অংশ হিসেবে রান্নার একটি অনুষ্ঠানে কাজ করছেন। এটি একসঙ্গে প্রচার হবে দেশের একাধিক টেলিভিশনে। নাগরিক টিভির নতুন একটি অনুষ্ঠানেও উপস্থাপনা শুরু করছেন তিনি। এর বাইরে ঈদের একাধিক অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করার সম্ভাবনা আছে বলে জানান নওশীন। বর্তমান উপস্থাপনার ধরন নিয়ে নওশীন বলেন, 'উপস্থাপনার জন্য মূলত শুদ্ধভাবে কথা বলতে জানতে হয়। এখানে নিজের সৌন্দর্য তুলে ধরা মূল কথা নয়। আমাদের সময় থেকে বর্তমান সময়ের উপস্থাপনায় এক ধরনের পরিবর্তন আছে। তখন উপস্থাপনার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোনো স্টাইল মানা হতো। কিন্তু এখন অনেকেই নিরীক্ষাধর্মী কাজ করছেন। তাদের অনেকের কাজ আমার ভালো লাগে। অন্যদিকে কেউ কেউ উপস্থাপনার চেয়ে নিজের সাজগোজ, পোশাক আশাক নিয়ে বেশি সচেতন। কিন্তু আমি ব্যক্তিগতভাবে মেকআপ ছাড়া সাধারণ পোশাকেও উপস্থাপনা করেছি। কিন্তু অনুষ্ঠানের মান তাতে পড়ে যায়নি। আমার কথা হলো, যা-ই কর, জেনে, বুঝে কর। না জেনে ভুল তথ্য দেওয়া উচিত নয়। আর উচ্চারণের ব্যাপারে আমাদের আরও সচেতন হওয়া উচিত।' বর্তমানে থার্ডবেল নামে একটি অনলাইন ইউটিউব চ্যানেলে স্বামী হিল্লোলের সঙ্গে কাজ করছেন নওশীন। এরই মধ্যে এ চ্যানেল থেকে বেশকিছু নাটক জনপ্রিয়তাও অর্জন করেছে। অনলাইনকেন্দ্রিক এ চ্যানেল প্রসঙ্গে নওশীনের অভিমত হলো, স্বাধীন নির্মাতাদের জন্য এটি ভালো প্ল্যাটফর্ম। কিন্তু নাটক বা চলচ্চিত্র অবশ্যই টেলিভিশন বা প্রেক্ষাগৃহে দেখানো উচিত।



Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.