সর্বশেষ সংবাদ

আগের মতো প্রাণ পাই না শুটিংয়ে :Apurba

আজ এটিএন বাংলায় প্রচারিত হবে ধারাবাহিক নাটক লাইফইনএমেট্রোর ১৭৫তম পর্ব। শফিকুর রহমানের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন বি ইউ শুভ। শুরু থেকেই নাটকটিতে অভিনয় করছেন অভিনেতা Apurba। এবারের ঈদে এ অভিনেতার মার্চমাসেশুটিং নাটকটি আলোচনায় এসেছে। কথা হলো এই তারকার সঙ্গে।

আগের মতো প্রাণ পাই না শুটিংয়ে :Apurba

‘লাইফ ইন এ মেট্রো’ শুরুর দিকের ভালো লাগা নিয়ে এখনো অভিনয় করেন?
সত্যি কথা বলতে কি, শুরুতে সবাই মিলে দারুণভাবে কাজ করতাম। এখন সে রকম নেই। কারণ, আগের মতো সব অভিনয়শিল্পী একসঙ্গে সময় দেন না। অর্থাৎ কোনো কারণে সবার শিডিউল ম্যাচ হয় না। এর ফলে ধারাবাহিকটির লেখক খেই হারিয়ে ফেলেন। যাঁর শিডিউল পাওয়া যায়, তাঁর চরিত্র ধরে চিত্রনাট্য লেখা হয়। এতে তো গল্প এগোতে পারে না। তাই আগের মতো প্রাণ পাই না শুটিংয়ে।

এতে কি দর্শককে ধোঁকা দেওয়া হচ্ছে না?
এ ক্ষেত্রে আমি ধোঁকা বলতে চাই না। এটা নেগেটিভ হয়ে যায়। আমি বলব, এটা যেহেতু একটা কাজ এবং দর্শকেরা দেখেন, তাই কাজটি যেন গুরুত্ব দিয়ে করা হয়। এ ব্যাপারে সবারই সহযোগিতা জরুরি।

ঈদে ‘মার্চ মাসে শুটিং’ নাটকটি বেশ আলোচনায় এসেছে।
হ্যাঁ, সবাই বেশ পছন্দ করেছেন। শুধু এটা নয়, এবারের ঈদে আমার আরও কয়েকটি নাটক সবাই দেখেছেন। এর মধ্যে ব্যাচ ২৭, খুঁজি তোমায় অন্যতম।

‘মার্চ মাসে শুটিং’-এর জন্য কেমন প্রস্তুতি ছিল?
কোনো প্রস্তুতি ছিল না। বলে রাখি, আমি কোনো নাটকের জন্যই কোনো প্রস্তুতি নিই না। আমি থাকি ‘ব্ল্যাঙ্ক পেজ’-এর মতো। পরিচালক যা বলেন, তা-ই করি। এ নাটকের বেলায়ও সে রকম হয়েছে। আমি সেটে গিয়েছি, তাঁরা প্রপস ও দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। বিশেষ করে নাটকটির পরিচালক অমিতাভ রেজা চৌধুরী আমাকে যেভাবে বলেছেন, সেভাবেই শট দিয়েছি। তাই সব কৃতিত্ব আমার পরিচালকের। আর অমিতাভ ভাই আমার ক্যারিয়ারের বড় টার্নিং পয়েন্ট। তাঁর মুখ থেকেই আমি জীবনের প্রথম ‘অ্যাকশন’ শুনে শট দিয়েছিলাম। তাই তাঁর সঙ্গে কাজ করা অন্য রকম ব্যাপার।

আপনাকে রোমান্টিক চরিত্রে বেশি দেখা যায়। কারণ কী?
আমি কিন্তু নানা মাত্রিক চরিত্রে অভিনয় করেছি এবং করি। কিন্তু কোনো এক কারণে এই নাটকগুলো অতটা ফোকাসড নয়। এটা ঠিক, রোমান্টিক নাটকে আমি বেশি অভিনয় করেছি। বেশির ভাগ পরিচালক রোমান্টিক নাটকে অভিনয়ের জন্য আমার কাছে আসেন। যখন বলেন ওই চরিত্রে আমি ছাড়া আর কেউ নেই অভিনয়ের জন্য, তখন কিন্তু ভালোই লাগে।

আপনি তো গানও করেন।
খুব বেশি না। মাঝেমধ্যে গিটার হাতে নিই। পারিবারিক কোনো অনুষ্ঠানে বা বন্ধুরা জোর করলে এক-আধটু গাওয়া হয়।



Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.