সর্বশেষ সংবাদ

অভিনেত্রীদের পাশাপাশি যৌন নিগ্রহের শিকার হলিউড Actor-রাও


সম্প্রতি যৌন নিগ্রহের অভিযোগে অস্কার কমিটির সদস্যপদ হারিয়েছেন হলিউড মিডিয়া মুঘল হার্ভি ওয়াইনস্টিন। এবারে যৌন নিগ্রহের বিষয়ে মুখ খুললেন একাধিক হলিউড Actor।


১২ অক্টোবর হলিউড প্রযোজক ও পরিবেশক হার্ভি ওয়াইনস্টিনের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ আনেন ১২ জন হলিউড অভিনেত্রী। এদের মধ্যে ছিলেন অস্কারজয়ী অভিনেত্রী কেট উন্সলেট ও জেনিফার লরেন্স, অ্যাশলি জুড, রোজ ম্যাকগোয়ান প্রমুখ। এরপর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে ‘মি টু’ হ্যাশট্যাগযুক্ত নিরব প্রতিবাদ। সম্প্রতি টুইটার ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যৌন নিগ্রহের অভিজ্ঞতার কথা জানালেন একাধিক হলিউড Actor।

এবিসি নিউজ জানায়, ১৯৮৭ সালের সাড়াজাগানো হরর ড্রামা ‘দ্য লস্ট বয়েস’ দিয়ে জনপ্রিয়তা পান ক্যানাডিয়ান কিশোর কোরি হাইম। সে সময় তার বয়স ছিলো মাত্র ১১। এতে আরও অভিনয় করেন মার্কিন কিশোর কোরি স্কট ফেল্ডম্যান। পরবর্তীতে টিভি অনুষ্ঠান ‘টু কোরি’ দিয়ে জনপ্রিয়তা পান তারা দু’জনই। সম্প্রতি এক টুইট পোস্টে ‘দ্য লস্ট বয়েস’ এর শুটিং সেটে ধর্ষণের ভয়াবহ অভিজ্ঞতা নিয়ে বললেন তিনি।

টুইট পোস্টে কোরি স্কট ফেল্ডম্যান লিখেছেন, “আজকেই এই দিনটি দেখার জন্য দীর্ঘদিন ধরে অপেক্ষায় ছিলাম। আমি জানতাম একদিন হলিউডের এই ‘কালো অধ্যায়’ সবার সামনে উঠে আসবে। যে পরিমাণ মানসিক ও শারিরীক কষ্টের ভেতর দিয়ে কোরি হাইম ও আমাকে যেতে হয়েছিলো এখন সে বিষয়টি নিয়ে সবাই কথা বলছে। হার্ভি ওয়াইনস্টিন একা নন। হলিউড জুড়ে এমন আরও অনেকেই আছেন যাদের যৌন লালসার হাত থেকে রেহাই পায়নি অল্পবয়সি শিশুশিল্পীরাও।”

এর আগে গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে ফেল্ডম্যান বলেছিলেন, “১৯৮৬-৮৭ সালের দিকে যখন আমরা ‘দ্য লস্ট বয়’ ছবির কাজ করি তখন আমার বয়স ছিলো মাত্র ১৫ আর হাইমের ১১। শুটিং সেটে আমাদের একদল বয়স্ক লোক ঘিরো ধরেছিলো এবং অ্যানাল সেক্সে বাধ্য করেছিলো। আমরা দু’জনই তখন অপ্রাপ্তবয়স্ক ছিলাম। প্রচন্ড ব্যাথা পেয়েছিলাম আমরা কিন্তু ভয়ে কাউকে এ কথা বলিনি।”

টুইটারে নব্বই দশকের জনপ্রিয় শিশু-কিশোর সিরিজ ‘ডোসন’স ক্রিক’ এর Actor জেমস ভ্যান ডার বেক লিখেছেন, “যৌন হয়রানির অভিজ্ঞতা আমারও হয়েছে। একবার আমাকে পেছন থেকে জাপটে ধরেছিলো একজন বয়স্ক লোক। তখন আমি অনেক ছোট। আমাকে ঘরের এক কোনায় ডেকে নিয়ে অশ্লীল প্রস্তাবও দিয়েছিলো সে। এ ঘটনা মনে পড়লে এখনও লজ্জা ও ঘৃণায় ভরে যায় মন।”
Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.