সর্বশেষ সংবাদ

৫০ এ পা রাখলেন Juhi চাওলা

৫০ বছরে পা রাখলেন নব্বই দশকের সাড়াজাগানো বলিউড অভিনেত্রী Juhi চাওলা। জন্মদিনে জেনে নিন এ তারকার অভিনয় জীবনের উল্লেখযোগ্য কিছু ঘটনা।


১৯৮৬ সালে ‘সুলতানাত’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে প্রবেশ করেন Juhi চাওলা। এরপর একে একে উপহার দেন ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’, ‘চাঁদনী’, ‘লুটেরে’, ‘আন্দাজ’, ‘ইয়েস বস’, ‘ইশক’, ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস খিলাড়ী’র মতো জনপ্রিয় সব সিনেমা।

ভারতীয় এ অভিনেত্রীর জন্ম ১৯৬৭ সালের ১৩ নভেম্বর। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস অবলম্বনে হিন্দি সিনেমায় তার অবদান ও উল্লেখযোগ্য কিছু ঘটনা নিয়ে সাজানো হলো এ বিশেষ প্রতিবেদন।

মিস ইন্ডিয়ার খেতাব জয় ও বলিউডে প্রবেশ:
১৯৮৪ সালে ‘মিস ইন্ডিয়া’ খেতাব জয় করেন Juhi চাওলা। এরপর দু’বছর বিরতি নিয়ে নিজেকে বলিউডের জন্য প্রস্তুত করেন তিনি। ১৯৮৬ সালে মুকুল এস. আনন্দ পরিচালিত ‘সুলতানাত’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন তিনি। এ ছবিতে Juhiর সঙ্গে আরও অভিনয় করেন ধর্মেন্দ্র, ববি দেওল, শ্রীদেবী প্রমুখ।

গৎবাঁধা আবেদনময়ী অভিনেত্রীর ইমেজ ভাঙা:
Juhi চাওলাকে ভারতীয় দর্শক দীর্ঘদিন মনে রাখবে তার অভিনয় প্রতিভার জন্য। ভারত সুন্দরী খেতাবজয়ী এ অভিনেত্রী গৎবাঁধা লাস্যময়ী নায়িকার ইমেজ ভেঙে কৌতুকময় সংলাপ ও চটকদার চরিত্রে অভিনয়ের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

সুদর্শনা নায়িকার বোকা বোকা সংলাপের বদলে ‘ইয়েস বস’, ‘ডুপ্লিকেট’ ইত্যাদি সিনেমায় Juhiর হাস্যরসাত্মক ও কৌতুকময় চরিত্রগুলো মনে দাগ কেটেছিল দর্শকের।

স্টাইল আইকন:
নব্বই দশকের অন্যতম সেরা স্টাইল আইকন ধরা হয়ে থাকে Juhiকে। ‘চাঁদনী’ ও ‘ইশক’ ছবিতে তার পরিধেয় পোশাক সাড়া ফেলেছিল দর্শকদের মাঝে। ৫০ বছর বয়সে এসেও তার রুচিশীল সাজ-পোশাক মুগ্ধ করে ভক্তদের।

সাড়া জাগানো সিনেমা ও চরিত্র:
১৯৮৮ সালে সাড়া জাগানো ছবি ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’-এ আমির খানের বিপরীতে রশমি সিং চরিত্রে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা পান Juhi। এ ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রীর ফিল্মফেয়ার পুরস্কারও জেতেন তিনি। এছাড়াও সাইকো থ্রিলার ‘ডর’ ও ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস খিলাড়ী’ সিনেমায় Juhiর অনবদ্য অভিনয় মুগ্ধ করেছে দর্শকদের।
সর্বশেষ ‘দিল ভিল প্যায়ার ভ্যায়ার’ ও ‘দ্য হান্ড্রেড ফুট জার্নি’ সিনেমায় অতিথি চরিত্রে দেখা গেছে জুটিকে। সামনেই ওয়েব সিরিজ ‘দ্য টেস্ট কেইস’-এ একটি বিশেষ চরিত্রে দেখা যাবে তাকে।
Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.