সর্বশেষ সংবাদ

‘Nabila জানো?’- মজা পাচ্ছে Nabilaরা


 ‘Nabila জানো? একজন মুমূর্ষ রোবটের জন্য রক্তের প্রয়োজন। রক্তের গ্রুপ (N+)’-  লাল পোস্টারে সাদা হরফে লেখা এ কথাগুলো সেঁটে আছে ঢাকার বেশ কিছু এলাকার দেয়ালে।


প্রথমে কিছু লোক, তাদের মাধ্যমে আরো কিছু মানুষের কল্যাণে পোস্টারটি দ্রুতই চলে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাইট ফেসবুকে। তারপর পোস্টারের কথাগুলো ভাইরাল হতে খুব বেশি সময় লাগেনি আর। ফেসবুক ইউজার ঢাকাবাসীর এখন একটাই আলোচনা- কে এই Nabila?

ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজেদের ওয়ালে হ্যাশ ট্যাগের মাধ্যমে Nabilaর কাছে অনেক মানুষই অনেক কিছু জানতে চাইছেন। কারো কারো কাছে এটা হাস্যরসের বিষয় হলেও, কারো কারোর প্রশ্নে সমাজের বিভিন্ন অসঙ্গতিও উঠে এসেছে। এ Nabila কাণ্ডে যেমন মজা পাচ্ছেন, তেমনই বিড়ম্বনারও শিকার হচ্ছেন ফেসবুকে থাকা Nabila নামের যে কোনো বয়সী নারী। এ পোস্টার ভাইরাল হওয়ার পর থেকে ইতোমধ্যে অনেকেই তাদের পরিচিত Nabilaদের ওয়ালে এ পোস্টার কিংবা পোস্টারে লেখা কথাগুলো ট্যাগ করছেন। অনেকে অনেক কিছু জানাচ্ছেন কিংবা ‘Nabila জানো’ লিখে নানা কিছু জানতেও চাইছেন।

এ ট্যাগ হওয়া থেকে বাদ যাননি বাংলাদেশের মিডিয়া জগতের পরিচিত দুই মডেল ও অভিনেত্রী মাসুমা রহমান Nabila এবং Nabila ইসলামও। গত কয়েকদিন অসংখ্য ‘Nabila জানো’ পোস্ট তাদের ওয়ালে জমা হয়েছে। অমিতাভ রেজা পরিচালিত জনপ্রিয় চলচ্চিত্র আয়নাবাজির অভিনেত্রী মাসুমা রহমান Nabilaর ফেসবুক ওয়ালে ঘুরে এসে দেখা যাচ্ছে, সাইমুন রিয়াদ নামের একজন লিখেছেন- ‘Nabila জানো? তোমার জন্য যে আমি সিঙ্গেল এই কথা কেউ বিশ্বাস করতে চায় না’। 

মোজাম্মেল হোসেন তোহা নামের একজন লিখেছেন- “Nabila জানো? গতকাল তোমার অভিনীত ‘কথা হবে তো?’ নাটকটা দেখলাম। অসাধারণ একটা নাটক। দেখেই তোমার উপর ক্রাশ খেয়েছি। মন চাইছে দোতলার ল্যান্ডিংয়ে দাঁড়িয়ে তোমার সাথে দুটো কথা বলি। কী? কথা হবে তো?” দাইয়ান শুভ্র লিখেছেন ‘শহর জুড়ে Nabila পোস্টার, কেন Nabila কেন?’

এদিকে আরেক তরুণ মডেল ও অভিনেত্রী Nabila ইসলামের ফেসবুক ওয়ালে গিয়ে দেখা যায় নির্মাতা ও অভিনেতা হুমায়ূন সাধু লিখেছেন- ‘কে জানে আজকের খেলা কে জিতবে? Nabila জানে- কে জিতবে, কীভাবে।

‘এ রকম নিত্যনতুন পোস্ট প্রতিনিয়ত যুক্ত হচ্ছে তাদের ওয়ালে, ট্যাগ রিকুয়েস্ট এক্সেপ্ট না করার কারণে অনেক ‘Nabila জানো?’ পোস্টই বোধহয় থেকে যাচ্ছে টাইমলাইন রিভিউতে। এ বিষয়ে জানতে প্রিয়.কম থেকে যোগাযোগ করা হয় এ দুই অভিনেত্রীর কাছে। তবে তারা দুজনই ব্যাপারটিকে হাস্যরসের পর্যায়েই রেখেছেন। অভিনেত্রী মাসুমা রহমান Nabila জানান, এ রকম অসংখ্য পোস্ট তার ওয়ালে আসলেও এখনো বিষয়টিকে তিনি ফান হিসেবেই দেখছেন।

আয়নাবাজি'র এ অভিনেত্রী আরো বলেন- এর আগেও 'Nabila' সম্পর্কিত কোনো একটি গান বা পোস্ট ফেসবুকে বেশ আলোচিত হয়েছিল, তখনও তিনি অনেক পোস্টে ট্যাগড হয়েছেন। তবে এবারের পোস্টটি খুব বেশি ভাইরাল হওয়াতে অনেক বেশি ট্যাগ হতে হচ্ছে, তবে তা এখনো পর্যন্ত বিরক্তির কারণ হয়নি। 

এদিকে আরেক অভিনেত্রী ও Nabila ইসলাম বলেন- প্রতিদিন তার পক্ষে এত নটিফিকেশন দেখা সম্ভবও হয় না; বন্ধুদের কিছু ট্যাগ অটো টাইমলাইনে চলে আসে, সেটাতে তিনি এখনো পর্যন্ত বিরক্ত বা বিব্রত বোধ করেননি। যেহেতু 'Nabila জানো'- কেন ও কী, সেটা তিনি জানেন না, ফলে বিষয়টি তার কাছে ফানি-ই লাগছে। 

উল্লেখ্য ঢাকার তেজগাঁও, সার্ক ফোয়ারা, কারওয়ান বাজার, মগবাজার, সাইন্সল্যাব এবং ধানমন্ডিসহ বেশ কিছু এলাকার দেয়াল একটি লাল রং এর পোস্টারে ছেয়ে গেছে। সেখানে সাদা হরফে লেখা আছে- Nabila জানো? তার নিচেই একটু ছোট করে লেখা- 'একজন মুমূর্ষ রোবটের জন্য রক্তের প্রয়োজন। রক্তের গ্রুপ (N+)'। ঢাকার ব্যস্ততম এ এলাকাগুলোয় প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ যাতায়াত করে, যাদের মাধ্যমে খুব দ্রুতই এ পোস্টার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে পৌঁছে ভাইরাল হয়ে উঠেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এরই মধ্যে এ পোস্টার নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা। অনেকেই সুবোধের গ্রাফিতির সঙ্গে খুঁজে ফিরছে Nabilaর যোগসূত্র। তবে সবকিছু ছাপিয়ে এখন একটা প্রশ্নই লোক মুখে ঘুরে ফিরে আসছে- কে এই Nabila? কেনই বা একজন রোবটের জন্য তার কাছে রক্ত চাওয়া হচ্ছে? মুমূর্ষু রোবট দ্বারা কী মানুষের বিমর্ষ রূপ বোঝানো হয়েছে, কিংবা ক্রমশ হৃদয়হীন হয়ে উঠা মানুষগুলোকেই বোঝানো হয়েছে?

দুই অভিনেত্রী মাসুমা রহমান Nabila ও Nabila ইসলাম Nabilaর ফেসবুক ওয়ালের মতো এ রকম অসংখ্য Nabilaকে নিয়ে লেখা প্রশ্ন হ্যাশ ট্যাগের মাধ্যমে প্রতি মুহূর্তই যুক্ত হচ্ছে ফেসবুকে। কিন্তু এর মাধ্যমে কী আর জানা যাবে- কে এই Nabila? কে-ই বা এ মুমূর্ষু রোগী, কেনই বা তার এন পজেটিভ রক্ত প্রয়োজন, আর কি-ই বা তার উদ্দেশ্য?

তবে কী এ শুধুই এক পাগল প্রেমিকের কর্ম? নিজের প্রেমিকাকে কিছু বলতে চেয়েই কী তার এই পাগলামী? নাকি কোনো কর্পোরেট কোম্পানীর প্রোডাক্ট সেলের এটা একটি অভিনব পন্থা? এটা কী তাহলে কোনো সিনেমার প্রচারণার অংশ? কিছুই নিশ্চিত হচ্ছে না কেউ, শুধু অসংখ্য ‘কী’ আর ‘কেন’ প্রশ্ন হয়ে ঘুরছে ঢাকাবাসীর মগজে।
Designed by Copyright © 2014
Powered by Blogger.